Warning: Use of undefined constant a - assumed 'a' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: Use of undefined constant aa - assumed 'aa' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 203

Warning: count(): Parameter must be an array or an object that implements Countable in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 51

Warning: count(): Parameter must be an array or an object that implements Countable in /home/rcitsolution/public_html/wp-content/plugins/socialbacklinkerpro/func.inc.php on line 661

Medical Assistant Training School (MATS)

Medical Assistant Training School (MATS)

ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট (ম্যাটস্‌)

মেডিকেল এ্যাসিষ্ট্যান্ট ট্রেনিং স্কুল বা ম্যাটস্ কি?

Medical Assistant Training School (MATS) হল এক ধরনের বিশেষায়িত মেডিক্যাল ডিপ্লোমা স্কুল। বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এ ধরনের স্কুল প্রতিষ্ঠার অনুমতি প্রদান করে। অনুমোদনের পরে সব ম্যাটস্ বাংলাদেশ রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদ (The State Medical Faculty of Bangladesh) এর মাধ্যমে পরিচালিত হয়। অনুষদের পাঠ্যক্রম অনুযায়ী পাঠদান করা হয় এবং অনুষদের সরাসরি তত্বাবধানে পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়।

 

ডিপ্লোমা ইন মেডিক্যাল ফ্যাকাল্টি Diploma in Medical Faculty (DMF) কি?

Diploma in Medical Faculty (DMF) ম্যাটস্ প্রতিষ্ঠানে পরিচালিত একটি কোর্সের নাম। এই কোর্সের মেয়াদ বর্তমানে ৪ বছর। সরকার অনুমোদিত পাঠ্যক্রম সম্পন্ন করে যারা উত্তীর্ণ হন তাদেরকে Diploma in Medical Faculty (DMF) ডিগ্রি দেয়া হয়। ডিগ্রি গ্রহণ করে এসব চিকিৎসক-গন বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল কর্তৃক রেজিস্ট্রেশন/লাইসেন্স প্রাপ্ত হয়ে চাকুরী বা প্রাইভেট মেডিকেল প্র্যাকটিস কাজ করতে পারেন।

পটভূমি:

আমাদের দেশে এমবিবিএস ডাক্তারের সংখ্যা এখনও যথেষ্ট নয়। তার পরেও যারা এমবিবিএস পাশ করেন, তারা মফস্বলে গিয়ে থাকতে চান না। সরকার পদায়নে বাধ্য করলেও তারা বদলি নিয়ে ঢাকায় অথবা বিভাগীয় শহরে চলে আসেন। এমনকি অনেকে চাকরি ছেড়ে দিয়ে শহরের প্রাইভেট হসপিটালে যোগদান করেন। তাই দেশর বৃহত্তম জনগোষ্ঠী যারা গ্রামে বসবাস করেন তাদের সঠিক স্বাস্থ্য সেবা হতে বঞ্চিত হতে হয়। সেই অভাব পূরণ করতে দেশের প্রান্তিক জনগণের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা সেবা দ্রুত পৌঁছে দেবার উদ্দেশ্যে ১৯৭৬ সালে ম্যাটস্ প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেয়া হয়। বাংলাদেশ রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদ (The State Medical Faculty of Bangladesh) এর আওতায় প্রথমে সরকারি উদ্যোগে ম্যাটস্ স্থাপিত হয়। এর পরে ক্রমশ বেসরকারি উদ্যোগে এ ধরনের প্রতিষ্ঠানের ব্যাপক সম্প্রসারণ হয়। শুরুতে এই কোর্সটির মেয়াদ ছিল ৩ বছর। বর্তমানে এই কোর্সটি আরও আধুনিক করা হয়েছে এবং ৪ বছর মেয়াদে উন্নীত করা হয়েছে।

ম্যাটস্ প্রতিষ্ঠান থেকে DMF ডিগ্রি নিয়ে ১৯৭৯ সালে থেকে গ্রাম/ইউনিয়ন এবং উপজেলা-পর্যায়ে নিযুক্ত হয়ে মেডিকেল এ্যাসিষ্ট্যান্টগন চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন।

 

MATS/DMF পেশাজীবীদের সম্ভাবনা:

২০০৮ সালের সরকার বিজ্ঞাপন দিয়েও চাহিদা অনুযায়ী DMF ডাক্তার পাওয়া যায়নি। DMF ডিগ্রিধারীরা সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় অধীনে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে, বিভিন্ন স্বাস্থ্য উপ-কেন্দ্রে, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে, স্কুল হেলথ ক্লিনিক, বিভিন্ন আধাসরকারী/কর্পোরেশন- যেমন- তিতাস গ্যাস, বি.আই.ডব্লিউ. টি.সি, বিজি প্রেস, বাংলাদেশে বিমান ইত্যাদি ছাড়াও বিভিন্ন এনজিও প্রতিষ্ঠানে যেমন-ব্র্যাক, গণস্বাস্থ্য, কেয়ার, গণসাহায্যে সংস্থা, আই.সি ডিডিআরবি, Save the Children (USA)/(UK), ইহা ছাড়াও দেশী বিদেশী নানা প্রতিষ্ঠানে DMF ডিগ্রি প্রাপ্তগন নিয়োগ পেয়ে থাকে। ভবিষ্যতে আরও নতুন কর্মক্ষেত্র তৈরি হবে। কিন্তু প্রশ্ন হল বর্তমানে শুধু সরকারী পর্যায়ে নিয়োগ দেওয়ার জন্য যথেষ্ট সংখ্যক DMF ডিগ্রিধারী না থাকায় বার বার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়েও আসন খালি থেকে যাচ্ছে। এই সমস্যা সমাধানের জন্যই সরকার বেশী সংখ্যক DMF ডিগ্রী ধারী ডাক্তার তৈরির জন্য বেসরকারি পর্যায়ে শিক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা শুরু করেছে। আবার চাকুরী না করলেও একজন DMF ডাক্তার প্রাইভেট প্রাকটিশনার হিসাবে শহরে বন্দরে কিংবা গ্রামে ডাক্তারি করে মাসে ভালো পরিমাণ অর্থ রোজগার করতে পারবে যাহা একটা ভালো চাকুরীর চেয়ে কোন অংশে কম নয়। সরকারী চাকুরীতে DMF ডিগ্রী ধারী ডাক্তাররা Sub-Assistant Community Medical officer (SACMO) বা উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার হিসাবে পরিচিত। মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্ট এখন উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার অথবা ডিপ্লোমা ডাক্তার হিসাবে বেসরকারি ক্ষেত্রে ও নানাবিধ পদে চাকুরীতে নিয়োগ দেওয়া হয়। এক কথায় কোর্স সম্পন্ন করলে ১০০% নিশ্চিত চাকুরী অথবা আত্ম কর্মসংস্থানের সুযোগ রয়েছে।

কাজের সুযোগ:

সরকারী পর্যায়ে যেমন-

জেলা সদর হাসপাতাল
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স
কমিউনিটি ক্লিনিক
বিভিন্ন সরকারি চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রতিষ্ঠানে কর্মক্ষেত্রের সুযোগ রয়েছে। যেমন- মেডিকেল কলেজ, ম্যাটস ইন্সটিটিউট, নার্সিং ইন্সটিটিউট ও কলেজ, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ, বিভিন্ন সরকারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ইত্যাদি।

বেসরকারি পর্যায়ে যেমন-
বেসরকারি হাসপাতাল
বেসরকারি ক্লিনিক
বিভিন্ন এনজিও
ডায়াগনস্টিক সেন্টার
বিভিন্ন ইন্ডাস্ট্রি
বিভিন্ন বেসরকারি চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রতিষ্ঠানে কর্মক্ষেত্রের সুযোগ রয়েছে। যেমন- মেডিকেল কলেজ, ম্যাটস ইন্সটিটিউট, নার্সিং ইন্সটিটিউট ও কলেজ, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ, বিভিন্ন বেসরকারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ইত্যাদি।

এছাড়াও নিজস্ব চেম্বার এ প্রাইভেট প্রাকটিস এর মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা প্রদান করে নিয়মিত অর্থ উপার্জনের সুবর্ণ সুযোগ।

ভর্তির যোগ্যতা: MATS (4 Years)

প্রার্থীকে সর্বোচ্চ চলতি বছর সহ ৫ বছর আগে (যেমনঃ ২০২১, ২০২০, ২০১৯, ২০১৮, ২০১৭ সালে যারা পাস করেছে) বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এস.এস.সি/দাখিল (জীব বিজ্ঞানসহ) সম-মানের পরীক্ষায় নূন্যতম জি.পি.এ ২.৫০ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।

কোর্স স্ট্রাকচার:

– তিন বছর একাডেমিক কোর্স (১ম, ২য় ও ৩য় বর্ষ) ।
– এক বছর ইন্টার্নশিপ কোর্স ( ৯ মাস জেলা সদর হাসপাতাল ও ৩ মাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স )।

কোর্স কারিকুলাম :

ম্যাটস্‌ কোর্সের শিক্ষার্থীরা মানবদেহের অঙ্গ প্রত্যঙ্গের অবস্থান সম্পর্কে স্পষ্ট ধারনা পায়। তারা সমাজের মানুষের স্বাস্থ্য সম্পর্কে সব ধরনের জ্ঞান লাভ করে। এছাড়া কিভাবে তা রোগ প্রতিরোধ ও পুনর্বাসন করতে হয় সে সম্পর্কে প্রশিক্ষিত হয়ে গড়ে ওঠে । বিভিন্ন ধরনের ড্রাগ এবং মেডিসিন সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয় । বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা যেমন রক্ত পরীক্ষা, প্রসাব পরীক্ষা, এক্স-রে ও অন্যান্য পরীক্ষা সম্পর্কে বিস্তারিত ধারনা দেয়া হয় । শিশু থেকে শুরু করে বয়স্ক মানুষের কী কী রোগ হতে পারে এবং লক্ষণ প্রকাশ ও তা অনুযায়ী রোগের চিকিৎসা সম্পর্কে বিস্তারিত প্রশিক্ষণ ও দেয়া হয় ।এমন কি বিভিন্ন অপারেশনে পারদর্শী করে তোলা হয় । মহিলাদের বাচ্চা প্রসব করা, নবজাতকের পরিচর্যা, মা ও শিশুর স্বাস্থ্য সম্পর্কে ধারনা দেওয়া হয়। এছাড়া চিকিৎসা বিষয়ক আইনগুলো সম্পর্কে ধারনা দেয়া হয়।

চিকিৎসাবিদ্যার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের ইংরেজিতে কথা বলা, লেখা ও উচ্চারণের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। যুগের সাথে তাল মিলিয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে দক্ষ করে গড়ে তোলা হয়।

 

ম্যাটস্‌ ভর্তি কখন শুরু হবে?

এস এস সি পরীক্ষা ২০২১ রেজাল্ট বের হওয়ার পর ম্যাটস ভর্তি এর আবেদন ছাড়ে। যার আবেদন পত্র স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অধিনে হয়ে থাকে। সাধারণত ম্যাটস আবেদনের মেয়াদ ৩০ দিন সময় থাকে। তবে ক্ষেত্র বিশেষএ এই সময় বর্ধিত করা হয়। এর পরে পরীক্ষা হবে, তার পরে ম্যাটস ভর্তি পরীক্ষার রেজাল্ট। রেজাল্ট হয়ে গেলে যারা নুন্যতম পাশ নম্বার পেয়ে থাকে তারা্ও  বেসরকারি প্রতিষ্ঠান গুলোতে ভর্তির সুযোগ পায়। অনলাইন করে পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেছে এমন শিক্ষার্থীরা পরের বছর মার্চ মাস পর্যন্ত বেসরকারি প্রতিষ্ঠান গুলোতে ভর্তি হতে পারে।

Comments are closed.